Monthly Archives: November 2013

যে কোন ক্যামেরার সাহায্যে তুলুন প্যানোরামা ছবি!

ফটোগ্রাফীর প্রচন্ড শখ থেকেই আমার ক্যামেরা কেনা। আর ক্যামেরা কিনতে যাবার সময় প্রচন্ড কম মাত্রায় বাজেটের ফলে যা হল তা হল এমন একটা ডিএসএলআর কিনলাম, যাতে কোন প্যানোরামা নেই। তাতে কি? একটু খুজতেই পেয়ে গেলাম প্যনোরামার জন্য দারুন এক সিষ্টেম। আর সেই সিষ্টেমটাই শেয়ার করব সবার সাথে। যদিও নিজের ব্লগে আগেই এটির ইংরেজী একটি টিউটোরিয়াল দিয়েছিলাম, তবে সেটা ইংরেজী হবার কারনে আজকে আবার টেকব্লগের সকল পাঠকদের জন্য তা আবার বাংলা করে দিলাম।

ভালো ছবি তোলার সহজ কৌশল-২ – অনীক ইসলাম জাকী

কি কি কাজে আপনি পারদর্শী নন তার একটি তালিকা বানিয়ে নিন। সেই কাজগুলো একে এক রপ্ত করার চেষ্টা করুন। একটিতে উন্নতি করলে পরের কাজটি প্রাকটিস করুন। কোন একটি ছবি ভালো না হলে সেটা ত্যাগ করা যাবে না। আরও সময় দিতে হবে ছবিটার পেছনে। ঘুরে ফিরে আরও ভালো ছবি তোলার চেষ্টা করতে হবে। দ্রুততার সাথে ছবি না তুলে একটু সময় নিয়ে কয়েকবার ছবি তোললে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। নিজের ভুলগুলো থেকে সবচেয়ে তাড়াতাড়ি শিক্ষা নেয়া যায়। তাই বারবার ছবি তুলে ছবির যে অংশ ভাল লাগছে না তা নিজে নিজে যাচাই করে আবার ছবি তুলতে তুলতে একদিন ভাল ফটোগ্রাফার হয়ে যাবেন। আসল কথা হলো,ভাল ফটোগ্রাফার হতে সময় লাগে । কিছুদিন ছবি তুলে ভাল কিছু না করতে পেরে ছেড়ে দিলে কি চলবে? ধৈর্য্য সহকারে নিয়মিত অনুশীলনই সফলতার হাতিয়ার।

 

হ্যাপি ক্লিকিং………

ভালো ছবি তোলার কিছু কৌশল – অনীক ইসলাম জাকী

আজকাল সবার হাতেই ক্যামেরা। যারই একটা মোবাইল আছে, সেই আজকাল ফোটোগ্রাফার হবার সুযোগ পেয়ে যায়। আজকাল মোবাইলগুলোও বিভিন্ন হাই ফাংশনসহ ক্যামেরা অফার করছে। এছাড়া বিভিন্ন কোম্পানী কমদামে ভাল ভাল কমপ্যাক্ট পয়েন্ট এন্ড শুট ক্যামেরা অফার করছে। তাই এখন সবাই ফোটোগ্রাফার!! তবে ফোটোগ্রাফি নিয়ে কিছু বেসিক জ্ঞানের এর অভাবে অনেকেই ভাল ছবি তুলতে পারেন না। অথচ সাধারন কিছু নিয়ম মেনে চললে আপনার ছবিও সকলের প্রশংশা পেতেই পারে! এখানে কিছু সাধারন টিপস দেয়া হল, এগুলো অনুসরণ করলে আপনি নি:সন্দেহে আগের চেয়ে ভাল ছবি তুলতে পারবেন।

1461155_760510547309506_1783477018_n

HIPA – Hamadan International Photography Award.

HIPA – Hamadan International Photography Award.

web: www.hipa.ae

HIPA’s journey continues as we now enter the third session. Four categories have been chosen which will inspire some of the world’s finest and most committed photographers. The Award encourages photographers to share their craft and demonstrate excellence in what is now one of the most coveted Awards in the world.

This session’s four categories are timeless and perfectly reflect the world we live in. They encourage photographers from all over the world to explore  the art-form of photography and demonstrate skills and creativity at a level which will set benchmarks globally.

২০টি ট্রাভেল ফটোগ্রাফী টিপস, যা জেনে রাখা উচিত!

শুরুর কথা

ফটোগ্রাফীর অন্যতম একটা সাব-ক্যাটাগরী হচ্ছে ট্রাভেল/ভ্রমণ ফটোগ্রাফী। সাধারণত ট্রাভেল ফটোগ্রাফী বলতে কোন একটি এলাকায়, যেখানে একজন ফটোগ্রাফার ঘুরতে যাচ্ছেন/গিয়েছেন, সেখানের দৃশ্য, মানুষ, সমাজ, পরিবেশ, ঐতিহ্য, ইতিহাস ইত্যাদির ছবিতোলা। Photographic Societo of America ভ্রমণ ছবির যেই সংজ্ঞা দিয়েছে তার বাংলা করলে দাড়ায়, ভ্রমণ ছবি হচ্ছে সেই ছবি যা সময় এবং স্থানের অনুভুতি প্রকাশ করে, চারিপাশের ছবি, এখানের মানুষ, ঐ স্থানের আপন পরিবেশে তার সংস্কৃতি প্রকাশ এবং যার কোন ভৌগলিক সীমা রেখা থাকে না।

একজন ফটোগ্রাফার যখন কোন স্থান ভ্রমণ করে, তখন তার মাথায় ঐ স্থানের সব থেকে সুন্দর দৃশ্য, মানুষের অনুভুতি এবং বাকি সব কিছু ক্যামেরা বন্দি করার নেশা থাকে। আর সেই নেশাকে সত্য রূপে প্রকাশ করতে হলে দরকার হয় তার কিছু প্রস্তুতি, আর আজকের টিপস গুলি সেই সব বিষয় মাথায় রেখেই করা।

মেমোরী কার্ড সম্পর্কে দশটি গুরুত্বপূর্ণ টিপসৃ – অয়ন আহমেদ

বেটার ফটোগ্রাফি ম্যাগাজিনটা পড়ে মেমোরী কার্ড বিষয়ক দারুন তথ্য পেলাম। আমি আমার মতন করে এখানে লেখলাম।

ক্যামেরা কেনার পর মেমোরী কার্ড কিনতে হয়। আপনি কি জানেন ক্লাস টেন কার্ড ক্লাস টু এর থেকে দামী? কেন ভালো মেমোরী কার্ড কেনা উচিত? বাজারে অনেক রকম মেমোরী কার্ড পাওয়া যায় কোনটা আপনার জন্যে ভালো হবে জানেন কি? এর রকম দশটি দরকারী জিনিষ জানার আছে।

১. যখন দেখবেন ক্যামেরার ডিসপ্লেতে মেসেজ দিয়েছে, ক্যান নট রিড অর রাইট তখন বুঝতে পারবেন আপনি মেমোরী কার্ড লক করে রেখেছেন তখন ক্যামেরা বন্ধ করে মেমোরী কার্ড বের করে লকটা আনলক করে নিবেন।

২. প্রতিটা কার্ডে বিভিন্ন স্পিডে রাইটি ও রিডিং হয় যেমন ক্লাস টু কার্ড মানে হলো ২ মেগাবাইট পার সেকেন্ড। ক্লাস যত বাড়বে রাইটিং ও রিডিং স্পিড তত বাড়বে। মানে হল ক্লাস টু কার্ড যত সময় নিবে ক্লাস ফোর তার অর্ধেক কম সময় নিবে মানে ৪ মেগাবাইট পার সেকেন্ডে পারবে। এরকম ক্লাস যত বেশী হবে তত দাম বেশী পড়বে। যারা ভিডিওগ্রাফি করেন তাদের ৭২০পি ভিডিও এর জন্যে ক্লাস সিক্স ব্যবহার করা উচিত আর এইচডি হলে ক্লাস টেন ব্যবহার করলে ভালো।

৩. ইউডিএমএ কার্ড সিএফ কার্ড এর থেকে ভালো হবে কারন এটির গতি বেশী। যা এইচডি ভিডিওগ্রাফির জন্যে খুব ভালো।

৪. স্পীডি মেমোরী কার্ড কিনলে ভালো মেমোরী কার্ড রিডার কেনা উচিত।

White Balance কি ও কেন – অয়ন আহমেদ

আপনি একটা কমলা লেবুর ছবি তোলার চেষ্টা করছেন কিন্ত ছবি তোলা পর দেখা সবুজ লেবুর মতন লাগছে। কমলা রং হারিয়ে গিয়ে সবুজ হয়ে গেছে। এটা হলো কিছু। আপনি দেখছেন কমলা রং আর ক্যামেরা দেখছে সবুজ রং। আর এজন্য আপনার মনটাই খারাপ হয়ে গেল। ঠিক করলে ক্যামেরা বদলে ফেলবেন। ভাবছেন ক্যামেরা ঠিক মতন রং দিতে পারছে না। কি তুলছি কি আসছে। তাই আপনি নিরীহ ক্যামেরার ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছেন। হয়ত আপনি বুঝতে পারছেন না যে, দোষটা আসলে ক্যামেরার নয়। ফটোগ্রাফিতে White Balance এর ভূমিকা অনেক ক্যামেরা ব্যবহারকারীরা বুঝতে পারেন না। কিন্তু যখন আপনি ছবি তুলতে যাবেন তখন আপনার কাঙ্খিত রং পেতে White Balance মূখ্য ভূমিকা রাখবে। মজার ব্যাপার জানেন, সৃষ্টিকর্তা আমাদের চোখে পাওয়ারফুল White Balance সিস্টেম রেখে দিয়েছেন এই জন্যে আমরা প্রতিটি রং সুস্পষ্টভাবে দেখতে পাই। যাদের রং বুঝতে সমস্যা হয় তাদেরকে বলে কালার ব্লাইন্ড কিংবা স্পেসিফিক রং ডিটেক্ট করতে পারে না। যেমন: ট্রাফিক সিগন্যালের যখন বাতি জ্বলে প্রথমে লাল বাতি তারপর হলুদ বাতি তারপর সবুজ বাতি জ্বললে গাড়ীগুলো চলাফেরা করে। এর রংগুলো কালার ব্লাইন্ডদের বুঝতে কষ্ট হয়। তেমনি একটা ক্যামেরা সহজে তার যান্ত্রিক চোখ দিয়ে সঠিক রং খুঁজে পায় না তখন White Balance এর সাহায্য নিতে হয়।

ফটোগ্রাফী – লেকচার ৩: লেন্স – মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান (শিক্ষক.কম)

শুরুতেই একটা কথা। টেকনিক্যাল বিষয় আমাদের কাছে সবসমই খটমটে লাগে। আমরা গাড়ি চালাই, কিন্তু গাড়ি কিভাবে চলে, সেই বিষয়ে খুব একটা ঘাটাঘাটি করতে চাইনা…ফলশ্রুতিতে রাস্তার মাঝখানে গাড়ি বসে গেলে নিজেও মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকি। ক্যামেরা গাড়ির মতো জটিল কিছু না, তারপরও টেকনিক্যাল কিছু ব্যাপার আছে। ক্যামেরা বডি সম্পর্কে যতটা পারি বলেছি আগের পর্বে, এই পর্বে বলবো ক্যামেরার ‘ডান হাত’ লেন্স নিয়ে…যতটা পারি সহজ করে। লেগে থাকুন, হয়ে যাবে!

আমাদের ছবির ক্যাটাগরি ক্যাচাল ও ছবির বিষয়ভিত্তিক কম্পোজিশন – ১ম পর্ব – ফায়েক তাসনিম খান

আমরা সবাই ফটোগ্রাফার। সবাই মনের আনন্দে মনের খোড়াক যোগাতে ছবি তুলে থাকি। আমরা যা দেখি, যা ভালো লাগে আমাদের চোখ সর্বপ্রথম ছবিটি তুলে থাকে। আমরা দেখি, আমাদের মন দিয়ে অনুভব করি। তখন আসে আমাদের ব্রেন তথা মগজ কয় “এইডাই তূলতে হইব, এইডা রাইখা দিতে হইব। তবে যার, যেটারই বা যা আমরা ছবি তুলে থাকি হাজার নিয়ম, টেকনিক, সময় দিয়ে সেই ছবিটার মত আরও ছবি খুজে দেখতে ছবিটার ক্যাটাগরি জানা প্রয়োজন। যেমন: কেউ আমরা একটা জুশ আখাম্বা বাড়ি দেখে ভালো লাগায় তার ছবি তুলেই ফেলতে পারি। এখন কথা হইল ছবি আপ্নে তূলতে চাইছেন তুলেই ফেলছেন। যদি আপনি আপনার তোলা নিয়ে খুশি থাকেন তবে আর কোন কথা হইতে পারে না। কিন্তু যদি আপনের মনে হয় যা তুল্লাম আর কি হতে পারত অথবা এইরকম আখাম্বা বাড়ির ছবি আপ্নের ভালো লাগে বলে আরও আখাম্বা জিনিশ পত্র দেখতে চান তবে আপনার জানা দরকার আপনি কি ধরনের ছবি তুলছেন, কোন ক্যাটাগরির ছবি হইছে আপ্নেরটা।

ক্লোজ-আপ ছবিকে আকর্ষণীয় করে তোলার কৌশল- কুতুবউদ্দীন

আমরা মাজে মাজে ক্লোজ-আপ ছবি তুলে হতাশ হই যখন দেখি ছবিটি আকর্ষণীয় হয় নি । কোন কোন সময় আমরা  কিছু ছবি দেখে আশ্চর্য হই, কিভাবে তুলেছে ভেবে ঘুম আসে না । কিছু  কৌশল অনুসরন করে আপনি আপনার ক্লোজ- আপ বা ম্যাক্রো ছবিকে ওদের মতো আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে পারেন । আজ সেই কৌশল গুলা নিয়ে কিছু আলোচনা করবো ।