হোলি উৎসব ফটোগ্রাফির টুকিটাকি – অয়ন আহমেদ

যদি প্রথমবারের মতন হোলি উৎসব দেখতে যান সেটি হবে আপনার জন্য খুবই রোমাঞ্চকর ও সুখকর অভিজ্ঞতা। আপনি খুব সুন্দর রঙীন মুহূর্ত ফুটিযে তুলতে পারবেন। অনেক হরেক রংয়ের খেলার উৎসব এটি। আপনি আপনার ক্যামেরা ও লেন্স সযত্নে ভালো মতন কভার করে গুড়া রং ও জলীয় রং থেকে বাঁচিয়ে দারুন সব ছবি তুলে সবাইকে চমকে দিতে পারেন।

Colorful Excitement 3/25

প্রতিবছর সাধারণত মার্চের শেষ সপ্তাহে, এবছর ২৪ মার্চ ঢাকার শাঁখারীবাজার, তাঁতীবাজার আরো কয়েকটি জায়গায় বড় করে হোলি উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। আগের দিন আবীর মেখে হোলি উৎসব শুরু হয়।

আমি হোলি উৎসবের ছবির ফটোগ্রাফি নিয়ে কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করলাম, যারা আপনারা ছবি তুলতে যাবেন তাদের জন্য খুব কাজে আসবে।

প্রথম কাজটা যেটা করতে হবে আপনাকে ছবি তোলার যন্ত্রটাকে খুব ভালো মতন প্লাস্টিক ব্যাগ দিয়ে ঢেকে নিতে হবে, কেননা, রং পানি একবার ক্যামেরা গেলে আপনার ক্যামেরার ক্ষতি হতে পারে। ক্যামেরার দোকানের নানান ধরনের ক্যামেরার ঢাকার জন্য প্লাস্টিক ব্যাগ পাওয়া যায়। যেমন: রেইন কভার, আন্ডারওয়াটার হাউজিং, নিজের হাতে বানানো কভার ইত্যাদি।

রেইন কভার                                        ছবি: ডিসকাউন্ট ডিজিটাল ফটোগ্রাফিকস

আন্ডার ওয়াটার হাউজিং প্লাস্টিক ব্যাগ         ছবি: আলীবাবা

 

 

 

 

 

 

 

এছাড়া যারা এই উপরের প্লাস্টিক কভারগুলোর দাম খুব বেশী হলে দুই হাজার টাকার মতন হতে পারে। এগুলো বসুন্ধরা, স্টেডিয়াম প্রায় সব ক্যামেরার দোকানে পাওয়া যায়।

যারা এই ধরনের প্লাস্টিক কভার কিনতে চাচ্ছেন না তারা ইচ্ছা করলে ঘরে বসে বানিয়ে ফেলতে পারেন। দুইটা পলিথিন লাগবে চারটা রাবার ব্যান্ড লাগবে। একটা পলিথিন ব্যাগ একদম নিচে ধরে ঠিক মাঝখানে একটা কেচি দিয়ে কেটে ছোট গোল ফুটা তৈরী করে নিতে হবে তারপর লেন্স খুলে উল্টা করে লাগিয়ে ক্যামেরার সাথে লাগিয়ে বডি ঢেকে দিতে হবে। তারপর খোলা অংশ রাবার ব্যান্ড দিয়ে আটকে দিতে হবে। এরপর লেন্সের ইউভি ফিল্টার খুলে আরেকটা পলিথিন একইভাবে কেটে ফুটা অংশ লেন্সের মুখে পরিয়ে দিয়ে ইউভি ফিল্টার লাগিয়ে দিতে হবে। তারপর পলিথিনের উপর রাবার ব্যান্ড দিয়ে আটকে দিতে হবে। তবে বেশী টাইট যাতে না সেটা খেয়াল রাখতে হবে তা না হলে লেন্স জুম ইন আউটে সমস্যা হতে পারে।

Color of joy

কিভাবে আপনি ঘরে বসে বানাবেন সেটি নিচের ইউটিউবে দেওয়া হলো:

দ্বিতীয় কাজ হবে নিজেকে ঠিক মতন ঢেকে রাখতে হবে । কারণ আপনার গায়ে যে রং লাগবে সেটি উঠতে দুই থেকে তিন দিন সময় লেগে যেতে পারে। তাই পুরানো ফুলহাতা টিশার্ট, পুরানো ফুল প্যান্ট, স্যান্ডেল, গামছা দিয়ে চুল ঢেকে রাখতে পারেন। মাথায় ক্যাপ রাখতে পারেন।

তৃতীয় কাজ হবে সাইট ও লেন্স সিলেকশন। আপনাকে ঠিক করতে হবে কোথায় ছবি তুলতে যাবেন যদি পুরানো ঢাকায় সবচেয়ে হোলি উৎসব হয়। সেখানে গলির ভিতরে আপনাকে ছবি তুলতে হবে। গলির ভিতরে আলোর স্বল্পটা দেখা যায়। তাই সবচেয়ে ভালো হয় যত বড় এ্যাপাচারের ছবি তুলতে পারলে। তবে প্রশ্ন চলে আসতে পারে কত বড় এ্যাপারচার যেমন: এফ১.৮, এফ২.৮ সেটা আলো দেখে বুঝতে পারবেন।লো লাইট কন্ডিশনে এই সব ফাস্ট প্রাইম লেন্সগুলো খুব কাজে দিবে। মনে রাখবেন সেখানে আপনার লেন্স খোলার সুযোগ থাকবে না। সুতরাং এমন লেন্স নিতে হবে আপনার পছন্দ মতন বিষয় সিলেক্ট করতে সুবিধা হয়। তবে প্রাইম লেন্স ৩৫মিমি, ৫০ মিমি এগুলো খুব কাজে দিবে পোট্রেট তোলার ক্ষেত্রে। তাছাড়া কিট লেন্স ব্যবহার করতে পারেন। আলো থাকলে এফ৫.৬ এ দারুন ছবি পাবেন। অনেকে ৭০-২০০, ৫৫-২৫০ টেলিলেন্স ব্যবহার করেন পোট্রেট, স্ট্রীট মুমেন্ট তোলার ক্ষেত্রে। অনেকে ওয়াইড লেন্স ব্যবহার করেন গ্রুপ শ্যুট নেওয়ার সময় কিংবা একটা বড় কভারেজ নিতে। আপনি কি তুলতে চাচ্ছেন সেটার উপর ডিপেন্ড করে লেন্স নিবেন কেননা, লেন্স কিন্তু বদলের সুযোগ খুব কম থাকবে এবং ঝুঁকি বেশী। ছবি তোলার সময় লেন্সের মুখের দিকে খেয়াল রাখবেন রঙ বা পানি ইউভি ফিল্টারে যেন না লাগে। নিজেকে নিরাপদ স্থানে রেখে ছবি তুলবেন।

চতুর্থ কাজ হবে ক্যামেরা সেটিংস ঠিক করা। আমি মূলত এভি মুডে ছবি তুলতে পছন্দ করি। আমি ৫০ প্রাইম ব্যবহার করতে পছন্দ করি। এ্যাপারচার বড় রাখি, এফ১.৮-২.৮। আইএস সর্বনিম্ম যত রাখা যায় তত ভালো গ্রেইন কমে আসবে সাধারণত ৪০০ এর বেশী আমি যাই না । ব্যাক ফোকাস বাটন ব্যবহার করি। কারণ অনেক সময় দেখা যায় গ্রুপ ছবি তুলছি আরেকজন নাচতে নাচতে গায়ের কাছে এসে পরে। তাই ব্যাক ফোকাস বাটন ব্যবহার করে ফোকাস লক করে ছবি তুলতে পারলে ছবি নষ্ট হবার সুযোগ কমে যায়। শাটার মুডে ছবি তুলতে পারেন মুহুর্ত ধরতে।

পঞ্চম কাজ হবে ব্যাটারী ফুল নেওয়া, মেমোরী কার্ড বড় নেওয়া। কন্টিনিউয়াস মুড অন রাখতে পারেন তাতে মুহুর্তগুলো একটা না একটা ছবি ধরা পড়বে।

ষষ্ঠ কাজ হবে যাদের ছবি হবে তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করবেন, দয়া করে কাউকে ধমকা ধমকি করবেন না। সুন্দর করে অনুরোধ করবেন ছবি তোলার জন্য কোনভাবে জোরাজুরি করবেন না। কেউ আপনাকে রঙ মাখাতে চাইলে বিরক্ত হবেন না সুন্দর করে হাসি দিয়ে রঙ নিবেন।

আশা করি সবাই খুব সুন্দর ছবি তুলে দারুন অভিজ্ঞতা নিয়ে বাড়ী ফিরবেন।

কোন প্রশ্ন থাকলে আমাকে ইমেইল করতে পারেন, ayonimages@gmail.com

Leave a Reply